ভোলা-বরিশাল সেতুর নকশা তৈরি।শিগ্রই বাস্তবায়ন

0

ডিসেম্বর মাসে ভোলা-বরিশাল সেতুর কাজ শুরু!প্রায় সাড়ে পাঁচ হাজার কোটি কাটায় নির্মান হবে এই সেতু।

ভোলা প্রতিনিধি:ফজলে রাব্বি   

প্রায় আটশ    বছরের প্রাচীন দ্বীপজেলা ভোলার মানুষের  একমাত্র যোগযোগের মাধ্যম নৌপথ।        কিন্তু শুধুমাত্র সড়ক যোগাযোগের          অবাবেই এখানকার কাঙ্খিত উন্নয়ন হচ্ছে না।

ভোলা           বরিশাল রুটে একটি সেতু নির্মাণের          জন্য বহুদিন ধরেই চেষ্টা চালিয়ে আসছেন   স্থানীয় সংসদ সদস্য ও সাবেক         বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। এ অবস্থায় ২০১৭ সালে সেতু বিভাগ এর    সম্ভাব্যতা যাচাইয়ের কাজ শুরু করে।   আর ৮ ফেব্রয়ারি বরিশালে ভাষণে প্রধাণমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই সেতু নির্মাণের ঘোষণা দেন।

এরপরই   ২৪ ফেব্রূযারি সরকারের উচ্চ পর্যায়ের              একটি দল সরেজমিন পরিদর্শন করে সেতু নির্মাণ কাজ শুরুর কথা জানান।

সেতু বিভাগের   সিনিয়র সচিব খন্দকার আনোয়ারুল      ইসলাম বলেন, ‘আমরা ফিজিবিলিটি              করেছি এবং সেই ফিজিবিলিটি        রিপোর্ট এখানে সবার সঙ্গে শেয়ার   করলাম। আমরা সম্ভাবনা দেখছি যে     ইনশাল্লাহ এই ব্রিজ করতে পারবো।’

প্রাথমিকভাবে     তিনটি সাইটে পরীক্ষা-নিরীক্ষা                করলেও বাস্তবতা ও অর্থনৈতিক           অবস্থা বিবেচনা করে ভেদুরিয়ার লাহারঘাট রুটটিকে নির্ধারণ করে বর্ষার      আগেই কাজ শুরু করার পরামর্শ দেন যাচাই-বাছাই কমিটি।

অবশেষে ২০১৯ সালের অক্টোবর মাসে জেলা প্রশাসন জানায় চলতি বছরে এই সেতুর কাজ      শুরু হবে।সড়ক ও সেতু মন্ত্রী                 ওবায়দুল কাদের বলেন বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সেতু ভোলা-বরিশাল নির্মান হবে।      এরমধ্যে সেতুর নকশা ও জায়গা নির্ধারন   হয়েছে।পদ্মা সেতুর চেয়ে বড় সেতু হবে ভোলায়।প্রায় সাড়ে পাঁচ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ হয়েছে । ইতিমধ্যে চীনের সঙ্গে এ সেতু নির্মাণের বিষয়টি চূড়ান্ত হয়েছে। কোন কোম্পানি ঠিকাদারি কাজ করবে তা ইআরডি সিদ্ধান্ত নেবে বলেও জানান সেতু সচিব।